Teknaf News24:: টেকনাফ নিউজ২৪ এ আপনাকে স্বাগতম
সংবাদ শিরোনাম :
«» রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নৌ-বাহিনীর টহল ও প্রচারাভিযান «» দেড় লাখ রোহিঙ্গা পরিবারের মাঝে করোনা সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিলি করলো কোস্ট ট্রাস্ট «» চট্টগ্রাম পুলিশের অনন্য এক উদ্যোগ: ডোর টু ডোর শপ «» পুলিশকে বিনয়ী, সহিষ্ণু ও পেশাদার হওয়ার নির্দেশ «» মার্কিন কংগ্রেসের ৫ সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত «» ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে ইতালি, ৯ হাজারের বেশি মৃত্যু «» সেই এসিল্যান্ড সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার «» তিনজন বয়োজ্যেষ্ঠ নাগরিককে অপমান: বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা চাইবে প্রশাসন «» সারা দেশে সব কিছু বন্ধ: রাস্তাঘাট জনশূন্য, সেনা-পুলিশের টহল «» পুলিশ ও বিজিবির সাথে গোলাগুলিতে ৪ জন নিহত, ৩ পুলিশ আহত «» ৭৮৭ দিন পর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অবস্থান: অবশেষে বাসায় ফিরলেন রিজভী «» ব্রিটেনে করোনায় আক্রান্ত ৬৬ লাখ! «» জুন পর্যন্ত কোনো কিস্তি আদায় নয়, তবে ঋণ দেওয়া যাবে «» অপপ্রচার বন্ধে টিভি চ্যানেল মনিটরিংয়ের দায়িত্বে ১৫ কর্মকর্তা «» যেন ঈদের ছুটিতে ছুটছেন সবাই! «» রাত ১২টার পর থেকে লক ডাউনে যাচ্ছে গোটা ভারত «» চট্টগ্রামে ১৬৩ কর্মীকে অগ্রিম বেতন দিয়ে প্রশংসায় ভাসছেন টেকনাফের সন্তান জাবেদ «» লক ডাউনে দিন মজুরদের কথা ভুলবেন না : আল্লামা তাকি উসামানি «» কক্সবাজারে ১৪ চিকিৎসকসহ ২১ জন কোয়ারেন্টিনে «» হ্নীলায় বন্দুক যুদ্ধে নিহত বর্মাইয়্যা শমসুর ডানহাত খ্যাত দুই মহারতির ব্যাংক ব্যালেন্স সহ প্রচুর সম্পদ «» বিদেশফেরত ১৩ জনের মাধ্যমে সংক্রমিত হয়েছেন বাকি ২০ জন «» সাধারণ ছুটির সময় গণমাধ্যমের কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকবে: তথ্যমন্ত্রী «» নেপালে করোনা আক্রান্ত ২, সারাদেশে লকডাউন «» শিক্ষাবিদদের পরামর্শ: মাদরাসা এবং সাধারণ শিক্ষার্থীরা কীভাবে কাটাবে করোনার ছুটি «» ভারতের ৩০ টি রাজ্যে লকডাউন «» সাজা মওকুফ করে ৬ মাসের জন্য খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিল সরকার «» জেএসসি পরীক্ষায় ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়ে টেকনাফের সেরা স্থান অর্জন করেছে আব্দুল হাফিজ «» আরিফের সঙ্গে ডিসি সুলতানার ফোনালাপ ফাঁস: চুপচাপ থাকার পরামর্শ «» করোনাভাইরাসকে ‘সংক্রামক রোগ’ ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশের নির্দেশ «» ইতালির মর্গেও জায়গা নেই, শেষকৃত্যের জন্যও ওয়েটিং লিস্ট!

রোহিঙ্গা ডাকাতদের আতংকে এলাকাবাসীর ঘুম নেই :রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে গ্রামবাসী

হাফেজ সাইফুদ্দীন আল মোবারকঃ                        রোহিঙ্গা ডাকাতদের আতংকে এলাকাবাসীর ঘুম নেই রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে গ্রামবাসী
কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে গ্রামবাসী। মুক্তিপণ আদায়ে অপরণ,ডাকাতির ভয়ে এলাকা ছাড়ছে অনেকে।
হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং এর পশ্চিমে রইক্ষ্যং এলাকায় প্রায় অর্ধ লক্ষাদিক রোহিঙ্গাদের বসবাস।মানবিক কারণে রোহিঙ্গা বিতাড়িত হয়ে বাংলাদেশে আসার পরে যারা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছেন, তাঁদের মাথার উপর লবণ দিয়ে বড়ই খাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন স্থানীয় সচেতন মহল। জানা যায়,
গত ১৩ জানুয়ারী ২০২০ইং হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উত্তর কানজর পাড়া এলাকায় বেশ কয়েকজন অপরিচিত লোক ঘুরাঘুরি করতে দেখলে স্থানীয়দের মনে সন্দেহ হয় যে, এরা কোন ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য হতে পারে। স্থানীয় লোকেরা তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু তারা কয়েকজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও স্থানীয় লোকেরা তাদের তিন সদস্য গ্রেফতার করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করার জন্যে হোয়াইক্যং ফাড়ির (এএসআই)আরিফুল ইসলাম কে খবর দিলে,পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাদের কে নিয়ে যায়। ধৃত ডাকাতরা হচ্ছে ,মোঃবশির উল্লাহ পিতাঃসৈয়দ হোসেন,মোঃছব্বির আহমদ পিতাঃফজল করিম,রফিক পিতাঃনুরুল ইসলাম। এদিকে স্থানিয় জনতা কর্তৃক
এই রোহিঙ্গা তিন ডাকাতকে পুলিশে দেয়ার পর দিবাগত রাত আনুমানিক ১০ টায় আবারও রোহিঙ্গা ডাকাত দলের বাহিনী অস্ত্র সহকারে করাচি পাড়া এসে আবু বকর এবং নুরুল হোসেন সওদাগরের ঘরের বাহিরে তালা লাগিয়ে দেয় বলে জানায় ভূক্তভুগী নুরুল হোসেন।
স্থানিয় আবু বকর জানায়, করাচি পাড়ার পশ্চিমে কুটি নামক স্থানের পাশে তার ক্ষেত খামার আছে। গত দুইদিন আগে সে নিজের ক্ষেতে কাজ করতে গেলে সেখান থেকে আবু বকর কে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায় রোহিঙ্গা ডাকাতরা। তারপর তাকে রোহিঙ্গা ডাকাত মধ্যযুগীয় নির্যাতন করে এবং তিন লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। তিন লক্ষ টাকা না দিলে তাকে হত্যা করে লাশ ফেরত দিবে। এর আগেও অনেক অসহায় মানুষকে একই নিয়মে মুক্তিপণ ও হত্যার ছবি আবু বকর কে ডাকাতরা দেখিয়েছে বলে জানান,আবু বকর। অবশেষে নিরুপায় হয়ে আবু বকর দুই লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দিয়ে প্রাণ রক্ষায় বাড়িতে চলে আসে বলে জানান।এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুরুল হোসেন মিডিয়া কর্মীদের জানায়, গত ১৩জানুয়ারী রাত ১০টার সময় রোহিঙ্গা ডাকাতরা তার বাড়ির বাহিরে তালা লাগিয়ে দেয় এবং সাথে সাথে ভেতরে থাকা মহিলারা চিৎকর করলে স্থানীয় লোকেরা ছুটে আসে। ফলে রোহিঙ্গা ডাকাতরা স্থানীয়দের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। উত্তর কান্জর পাড়া এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মীর কাশেম আলী,নুর আহমদ,এবং সচেতন লোকেরা সংবাদকর্মীদের জানান,এভাবে যদি রোহিঙ্গারা আমাদের কে নির্যাতন করে,আমরা যদি আমাদের জমিতে চাষ করতে যেতে না পারি, তাহলে এই দেশে কি খেয়ে বেঁচে থাকব। এক প্রশ্নের জবাবে এলাকাবাসী জানান ,সরকার যদি রোহিঙ্গা সন্ত্রসীদের দমনের ব্যবস্থা ও স্থানীয়দের নিরাপত্তার ব্যবস্থা না করে, রোহিঙ্গা সন্ত্রসীরা দিন দিন নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ডের জম্ম দিবে। বর্তমানে পাহাড়ি এলাকার আশপাশের মানুষের কোন নিরাপত্তা নেই। নেই জান মালের নিরাপত্তা ও। এসব এলাকার মানুষ চরম আতংকে রয়েছে।
হোয়াইক্যং ৫নং ইউপি সদস্য আব্দুল গফ্ফার জানান, রোহিঙ্গা অস্ত্রধারী বাহিনী করাচিপাড়া বড়খিল এর পশ্চিমে কুটি নামক স্থানে দিনের বেলায় অবস্থান করে। রাতের বেলায় এলাকায় এসে লুটপাট করে অথবা মানুষ অপরণ করে নিয়ে যায়। এর পর নির্যাতনের মাধ্যমে মুক্তিপণ আদায় করে। তিনি আরো বলেন, রাতে রোহিঙ্গা ডাকাতের ভয়ে করাচি পাড়া বড়খিল এর লোকেরা নিজের ভিটাবাড়ি ছেড়ে অন্য এলাকায় চলে যায় এবং দিনের বেলায় আবার ফিরে এসে নিজ বাড়িতে অবস্থান করে। উনচিপ্রাং দারুল ইরফান মুহিউস সুন্নাহ মাদ্রাসার শিক্ষক মাওঃমুজিবুল হক (রামপুরী হুজুর) জানান, মাদ্রাসার ছাত্ররা রাত্রে তাহাজ্জুদের নামাজ পড়তে উঠে।এখন আমরাও আতঙ্কে আছি যে কোন সময় মাদ্রাসার ছাত্রদের কে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়!হোয়াইক্যং মডেল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাও, নুর আহমদ আনোয়ারী বলেন,১৩ জানুয়ারী দিবাগত রাত্রে রোহিঙ্গা সন্ত্রসীরা যখন অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে করাচি পাড়া আসে তখন স্থানীয় লোকেরা আমাকে জানালে,আমি বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে পুলিশকে ফোন দিয়ে অবহিত করি।পরে সরেজমিন এসে পুলিশ স্থানিয় জনতা কে নিয়ে করাচি পাড়া পরিদর্শন করেন। তিনি রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের দমনের ব্যবস্থা না করা হলে উক্ত এলাকায় প্রতিনিয়ত এই ধরণের দূর্ঘটনার সৃষ্টি হবে এবং সর্বোপরি আইনশৃংখলার ও অবনতি ঘটবে বলে মন্তব্য করেন। বর্তমানে সর্বত্র ডাকাত আতংক বিরাজ করছে।#

(10) বার এই নিউজটি পড়া হয়েছে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।