,

সংবাদ শিরোনাম :
«» চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে সৌদিয়া-মাইক্রো সংঘর্ষে নিহত 8 «» ভেজাল রোধে হবে খাবারের পরীক্ষাগার: প্রধানমন্ত্রী «» জেলা ও উপজেলায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনে সমঝোতা স্মারক সই «» আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়ার মধ্যেও বন্দুকযুদ্ধ «» ১৬ ফেব্রুয়ারি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণ «» নারী কণ্ঠে গান গেয়ে চমক দেখালেন শাবনূর ভক্ত মিজান «» ইসলাম প্রেমে হেরে গেল ইসরায়েলের ১০০ মিলিয়ন ডলার «» প্রবাসী কর্মী নির্যাতন ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ মালয়েশিয়ার «» সৌদি কারাগারে চুমু দিতে বাধ্য করা হয় নারী বন্দিদের «» তামাশার নির্বাচনের পর চা-চক্র বিবেকহীন আনন্দ: রুহুল কবির রিজভী «» চা-চক্রের নিমন্ত্রণে না গিয়ে বিএনপি আলোচনার সুযোগ হারিয়েছে: হানিফ «» তাবলিগ জামাতের বিভেদ মিটে গেছে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী «» আফগান যুদ্ধের ইতি টানতে রূপরেখা তৈরি মার্কিন-তালেবান «» মানবপাচার প্রতিরোধে সকলের সচেতন হওয়া উচিৎ :উখিয়ায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের যুগ্নসচিব «» বেতনের আওতায় নারী ফুটবলাররা «» উখিয়ায় মেজবানের রান্না করা মাংসে ‘আল্লাহু’ লেখা «» এনজিওতে স্থানীয়দের অগ্রাধিকার দেয়ার নির্দেশ জেলা প্রশাসক’র «» আরও ৩১ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত «» সৌদি গণমাধ্যমে বাংলাদেশের চা «» সোনার বাংলা গড়তে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী «» ইয়াবা ব্যবসায়ীদের নামে বেনামের সম্পদ জব্দ ও শাস্তি নিশ্চিতের দাবী স্বচেতন মহলের «» জাতীয় পার্টি শক্ত বিরোধীদলের ভুমিকা রাখবে: রাঙ্গা «» মিস কালচার ওয়ার্ল্ড মুকুট জিতলেন প্রিয়তা «» সাগরপথে মানবপাচার বন্ধ হচ্ছে না , চক্রের টার্গেট এবার রোহিঙ্গা ক্যাম্প «» সুশাসন নিশ্চিত করাই নতুন সরকারের প্রধান চ্যালেঞ্জ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী «» সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কারও অনুমতি নেবে না তুরস্ক: এরদোগান «» তাবলিগের সংকট নিরসনে দেওবন্দে যাচ্ছেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল «» এ সময়ের সবচেয়ে দামি ফুটবলার কে? «» টেকনাফ ৫০ শয্যা হাসপাতালে একযোগে ১২ জন নার্স যোগদান «» যে কারণে সিরিয়া থেকে ইরানি সেনা সরাতে চায় ইসরাইল

প্রবাসী কর্মী নির্যাতন ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ মালয়েশিয়ার

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী কর্মীদের ওপর নানা নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত কোম্পানির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া সরকার। এতে অভিবাসী কর্মীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। মালয়েশিয়া থেকে নির্ভরযোগ্য সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।
মালয়েশিয়ার চিকিৎসাসামগ্রী প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ডব্লিউআরপির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবে দেশটির সরকার। বাংলাদেশি ও নেপালি কর্মীদের সঙ্গে বাজে আচরণ, তিন মাস ধরে তাদের বেতন-ভাতা না দেওয়াসহ সরকারি তদন্তে ৪২টি অভিযোগের আলামত পাওয়ার পর প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে দেশটির সরকার মামলা দায়ের করতে যাচ্ছে। মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ বিষয়ক মন্ত্রী এম. কুলাসেগারানকে উদ্ধৃত করে মালয় মেইল খবরটি জানিয়েছে। কুলাসেগারান দাবি করেন, গত বছরের আগস্ট থেকে কোম্পানিটির বিরুদ্ধে তদন্ত করছে মালয়েশীয় সরকার। গত ডিসেম্বরে প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের এক অনুসন্ধান থেকে জানা যায়, ডব্লিউআরপি নামক প্রতিষ্ঠানের কারখানায় কাজ করা বাংলাদেশি কর্মীদের বাধ্যতামূলক ওভারটাইম করানোর পাশাপাশি জোরপূর্বক শ্রমদানে বাধ্য করা হচ্ছে। গার্ডিয়ানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওই কর্মীরা অভিযোগ করেন, বেতন বকেয়া রাখা, ঋণের জালে আটকানো ও পাসপোর্ট জব্দ করে রাখার মতো পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছেন তারা। গার্ডিয়ান আন্তর্জাতিক শ্রম সংঘের নীতিকে বিবেচনায় নিয়ে একে আধুনিক শ্রমদাসত্বের পরিস্থিতি আখ্যা দেয়। তবে সে সময় ডব্লিউআরপি কর্তৃপক্ষ সে অভিযোগ নাকচ করে দেয়। এক সম্ভাব্য ক্রেতা ডব্লিউআরপির কারখানা ঘুরে আসার পর বলেছেন, কারখানার ভেতরে প্রবেশের পর সেখানকার পরিবেশ দেখে তিনি খুবই মর্মাহত হয়েছেন। এত বাজে কর্মপরিবেশ তিনি কোথাও দেখেননি। আবার এক হাজার ৮০০ কর্মী ধারণক্ষমতাসম্পন্ন হোস্টেলে রাখা হয়েছে তিন হাজারেরও বেশি কর্মীকে।
মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ বিষয়ক মন্ত্রী এম. কুলাসেগারান বৃহস্পতিবার কামপুং তাই লি গ্রামের বাসিন্দাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। সে সময় সাংবাদিকদের তিনি জানান, ডবিøউআরপির বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তিনি জানান, অভিযোগগুলোর মধ্যে একটি হলো বাংলাদেশি ও নেপালি কর্মীদের জন্য যথাযথ জীবনমান নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হওয়া। এ অভিযোগ তুলে কয়েক দিন আগেও ধর্মঘট পালন করেছেন দুই হাজার কর্মী। গত বছরের আগস্ট থেকে তদন্ত চলছে জানিয়ে কুলাসেগারান জানান, তদন্তে তাদের বিরুদ্ধে ৪২টি অভিযোগের আলামত পাওয়া গেছে।

(10) বার এই নিউজটি পড়া হয়েছে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।