,

সংবাদ শিরোনাম :
«» বেতনের আওতায় নারী ফুটবলাররা «» উখিয়ায় মেজবানের রান্না করা মাংসে ‘আল্লাহু’ লেখা «» এনজিওতে স্থানীয়দের অগ্রাধিকার দেয়ার নির্দেশ জেলা প্রশাসক’র «» আরও ৩১ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত «» সৌদি গণমাধ্যমে বাংলাদেশের চা «» সোনার বাংলা গড়তে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী «» ইয়াবা ব্যবসায়ীদের নামে বেনামের সম্পদ জব্দ ও শাস্তি নিশ্চিতের দাবী স্বচেতন মহলের «» জাতীয় পার্টি শক্ত বিরোধীদলের ভুমিকা রাখবে: রাঙ্গা «» মিস কালচার ওয়ার্ল্ড মুকুট জিতলেন প্রিয়তা «» সাগরপথে মানবপাচার বন্ধ হচ্ছে না , চক্রের টার্গেট এবার রোহিঙ্গা ক্যাম্প «» সুশাসন নিশ্চিত করাই নতুন সরকারের প্রধান চ্যালেঞ্জ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী «» সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কারও অনুমতি নেবে না তুরস্ক: এরদোগান «» তাবলিগের সংকট নিরসনে দেওবন্দে যাচ্ছেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল «» এ সময়ের সবচেয়ে দামি ফুটবলার কে? «» টেকনাফ ৫০ শয্যা হাসপাতালে একযোগে ১২ জন নার্স যোগদান «» যে কারণে সিরিয়া থেকে ইরানি সেনা সরাতে চায় ইসরাইল «» নির্বাচন নিয়ে টিআইবির প্রতিবেদন মনগড়া: ইসি রফিকুল «» ৫০ আসনের ৪৭ টিতে অনিয়ম, আগের রাতে সিল ৩৩টিতে : টিআইবি «» ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনের দাবি মোটেও সাংবিধানিক নয় : আইনমন্ত্রী «» ভোট কারচুপির জন্য আওয়ামী লীগকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে : ফখরুল «» নির্বাচনের প্রভাবে কক্সবাজারে হ্রাস পেয়েছে পর্যটকদের উপস্থিতি «» রোহিঙ্গা শিবিরে জন্ম নেয়া শিশুদের কান্না «» তফসীলের পর কক্সবাজারের চারটি আসনে ৬৯ মামলা : ৫ সহস্রাধিক আসামী «» আনন্দবাজারকে শেখ হাসিনা: আমরাই আসছি, মানুষ আমাদের চাইছেন «» শীতকালীন দলবদল: নেইমার-এমবাপ্পের নতুন বন্ধু হচ্ছেন কে? «» সৌদি আরবের জন্য উদ্বেগভরা একটি বছর শেষ: একসঙ্গে নাচলেন তরুণ-তরুণীরা «» সিইসির সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বৈঠক: ভোটের দিন সহিংসতার আশঙ্কা যুক্তরাষ্ট্রের «» বাংলাদেশের নির্বাচনে ভীতিহীন পরিবেশ নিশ্চিতের আহ্বান জাতিসংঘ মহাসচিবের «» তিউনিশিয়ায় দুঃশাসনের প্রতিবাদে গায়ে আগুন দিয়ে এক সাংবাদিকের আত্মহত্যা «» ভোট পাবে না জেনেই বিএনপি সহিংসতা করছে: প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনের প্রভাবে কক্সবাজারে হ্রাস পেয়েছে পর্যটকদের উপস্থিতি

আবদুল আজিজ, কক্সবাজার:
নির্বাচনি সহিংসতা এড়াতে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে যাওয়া কমিয়ে দিয়েছেন পর্যটকরা। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই মূলত পর্যটকদের আগমন হ্রাস পেয়েছে। গত ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের ছুটিতে কিছু পর্যটকের আগমন হতে দেখা গেলেও তা স্থায়ী হয়নি। গত ২৪ ডিসেম্বরের পর থেকে অধিকাংশ হোটেল মোটেলেও রুম বুকিং বন্ধ রয়েছে। নির্বাচনের পর, অর্থাৎ আগামী বছরের জানুয়ারি মাসের শুরু থেকে পর্যটকরা কক্সবাজারে পুরোদমে যেতে শুরু করবেন বলে আশাবাদী পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

কক্সবাজার হোটেল-মোটেল ও গেস্টহাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার বলেছেন, ‘কক্সবাজারে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা সাধারণত সেপ্টেম্বর থেকে আসা শুরু করেন। কিন্তু এ বছর রাজনৈতিক অবস্থার কারণে কক্সবাজার পর্যটক নেই বললেই চলে। অবশ্য, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প আবারও চাঙ্গাভাব শুরু হবে।

জানতে চাইলে সী-গার্ল হোটেলের সহকারী ম্যানেজার নুর-এ আলম মিথুন জানান, ‘৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে সহিংস ঘটনার আশঙ্কায় হোটেলে তেমন বুকিং হচ্ছে না। বিশেষ করে ২৪ ডিসেম্বরের পর থেকে আমাদের হোটেলে কোন বুকিং নেই। বিজয় দিবসের ছুটিতে যে পরিমাণ পর্যটক এসেছিলেন, তাও মুহুর্তে উধাও হয়ে গেছে’।

কক্সবাজার কলাতলী মেরিন ড্রাইভ হোটেল রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুকিম খানের ভাষ্য, ‘নির্বাচনি সহিংসতার আশংকায় কক্সবাজারে পর্যটক নেই বললেই চলে। গত বছরের ডিসেম্বরের এই সময়ে ২০ থেকে ৩০ লাখ পর্যটক কক্সবাজার ভ্রমণ করেছেন। অথচ এই বছর পুরো ডিসেম্বর মাসের এ পর্যন্ত ১০-১৫ লাখের মতো পর্যটক এসেছেন। গত দুইদিন ধরে পর্যটকদের প্রত্যাশিত উপস্থিতি নেই।

পর্যটকদের সুবিধার্থে আলাদা বিনোদন জোন গড়ার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (পর্যটন ও প্রটোকল) এসএম সরওয়ার কামাল জানিয়েছেন, ‘কক্সবাজারে পর্যটকদের আগমন বাড়াতে সরকার ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহন করেছে। টেকনাফের সাবরাং এক্সক্লুসিভ পর্যটন, নাফ ট্যুরিজম, ১২০ কিলোমিটার সমুদ্র সৈকতের মেরিন ড্রাইভ রোডকে ঘিরে ১০টি আলাদা জোনের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। এতে করে বিদেশী পর্যটকদের আগম বাড়বে’।

কক্সবাজার পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনের ভাষ্য, ‘বর্তমানে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের অধিকতর নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে। পর্যটকদের নিরাপত্তা বিধানে ট্যুরিষ্ট পুলিশের পাশাপাশি জেলা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। আশা করা হচ্ছে, নির্বাচনের পরপরই জানুয়ারি থেকে বিপুল পরিমাণ পর্যটকের সমাগম হবে কক্সবাজারে। এজন্য আমরা এসব পর্যটকদের নিরাপত্তা দিতে আগাম প্রস্তুতি নিচ্ছি।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো। কামাল হোসেন জানিয়েছেন, ‘কক্সবাজারে বিদেশি পর্যটকের আগমন বাড়াতে সরকার ব্যাপক পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। তারমধ্যে কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ সড়কের নির্মাণ দ্রুত সম্পন্ন করা হয়েছে। কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। রেল লাইন প্রকল্পের কাজও শুরু হয়েছে। টেকনাফে এক্সক্লুসিভ ট্যুরিস্ট জোনের জন্য জমি অধিগ্রণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং তা বাস্তবায়নের কাজও চলছে।

(10) বার এই নিউজটি পড়া হয়েছে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।