,

সংবাদ শিরোনাম :
«» চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে সৌদিয়া-মাইক্রো সংঘর্ষে নিহত 8 «» ভেজাল রোধে হবে খাবারের পরীক্ষাগার: প্রধানমন্ত্রী «» জেলা ও উপজেলায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনে সমঝোতা স্মারক সই «» আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়ার মধ্যেও বন্দুকযুদ্ধ «» ১৬ ফেব্রুয়ারি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণ «» নারী কণ্ঠে গান গেয়ে চমক দেখালেন শাবনূর ভক্ত মিজান «» ইসলাম প্রেমে হেরে গেল ইসরায়েলের ১০০ মিলিয়ন ডলার «» প্রবাসী কর্মী নির্যাতন ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ মালয়েশিয়ার «» সৌদি কারাগারে চুমু দিতে বাধ্য করা হয় নারী বন্দিদের «» তামাশার নির্বাচনের পর চা-চক্র বিবেকহীন আনন্দ: রুহুল কবির রিজভী «» চা-চক্রের নিমন্ত্রণে না গিয়ে বিএনপি আলোচনার সুযোগ হারিয়েছে: হানিফ «» তাবলিগ জামাতের বিভেদ মিটে গেছে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী «» আফগান যুদ্ধের ইতি টানতে রূপরেখা তৈরি মার্কিন-তালেবান «» মানবপাচার প্রতিরোধে সকলের সচেতন হওয়া উচিৎ :উখিয়ায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের যুগ্নসচিব «» বেতনের আওতায় নারী ফুটবলাররা «» উখিয়ায় মেজবানের রান্না করা মাংসে ‘আল্লাহু’ লেখা «» এনজিওতে স্থানীয়দের অগ্রাধিকার দেয়ার নির্দেশ জেলা প্রশাসক’র «» আরও ৩১ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত «» সৌদি গণমাধ্যমে বাংলাদেশের চা «» সোনার বাংলা গড়তে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী «» ইয়াবা ব্যবসায়ীদের নামে বেনামের সম্পদ জব্দ ও শাস্তি নিশ্চিতের দাবী স্বচেতন মহলের «» জাতীয় পার্টি শক্ত বিরোধীদলের ভুমিকা রাখবে: রাঙ্গা «» মিস কালচার ওয়ার্ল্ড মুকুট জিতলেন প্রিয়তা «» সাগরপথে মানবপাচার বন্ধ হচ্ছে না , চক্রের টার্গেট এবার রোহিঙ্গা ক্যাম্প «» সুশাসন নিশ্চিত করাই নতুন সরকারের প্রধান চ্যালেঞ্জ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী «» সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কারও অনুমতি নেবে না তুরস্ক: এরদোগান «» তাবলিগের সংকট নিরসনে দেওবন্দে যাচ্ছেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল «» এ সময়ের সবচেয়ে দামি ফুটবলার কে? «» টেকনাফ ৫০ শয্যা হাসপাতালে একযোগে ১২ জন নার্স যোগদান «» যে কারণে সিরিয়া থেকে ইরানি সেনা সরাতে চায় ইসরাইল

৯ মাসে প্রবাসী আয় ১২ হাজার মিলিয়ন ডলার: সংসদে প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী

চলতি বছর সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১১ হাজার ৮৭৭ দশমিক ৪২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিটেন্স অর্জিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

সোমবার জাতীয় সংসদে এম. আবদুল লতিফের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, বৈদেশিক কর্মসংস্থান এবং প্রবাসীদের অর্থ দেশের ক্রমবর্ধমান কর্মসৃজনের পাশাপাশি বেকারত্ব হ্রাস, দারিদ্র্যবিমোচন, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বৃদ্ধিসহ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রাখছে। তাই অভিবাসী কর্মীদের সেবা প্রদানের জন্য শ্রম উইংয়ের সংখ্যা ও জনবলের সংখ্যা বৃদ্ধি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে শ্রম উইংয়ের সংখ্যা ১৬টি হতে ৩০টিতে উন্নীত করা হয়েছে এবং নতুন করে আরও ১১টি শ্রম উইং চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।

১৬৫টি দেশে বাংলাদেশের কর্মী যাচ্ছে

এনামুল হকের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বিশ্বের ১৬৫টি দেশে বাংলাদেশের কর্মী যাচ্ছে। এর মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার। সৌদি আরবে সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি গমন করে থাকে। ২০১৭ সালে দেশটিতে ৫ লাখ ৫১ হাজার ৩০৮ জন এবং চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ লাখ ৮৭ হাজার ২২৩ জন কর্মী দেশটিতে গমন করেছে।

সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২ লাখ ৪১ হাজার ৮৬৭ জন কর্মী প্রেরণ করা হয়েছে

নাজমুল হক প্রধানের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বর্তমানে সরকারি তত্ত্বাবধানে অনুমোদিত রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে বেসরকারিভাবে মালোয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ করা হয়। ২০১৬ সালে সরকার অধিকহারে কর্মী প্রেরণের জন্য বেসরকারি রিক্রুটিং এজেন্সিকে অন্তর্ভুক্ত করে মালয়েশিয়ার সঙ্গে জিটুজি প্লাস সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করে। এ প্রক্রিয়ায় সারা দেশ থেকে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২ লাখ ৪১ হাজার ৮৬৭ জন কর্মী প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি জানান, প্রেরণকৃত কর্মী সরকারের তত্ত্বাবধানে বেসরকারি রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে গমন করেছেন। ইতিপূর্বে সফল শ্রম কূটনৈতিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় দুই লাখ ৬৭ হাজার অবৈধ অভিবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকের বৈধতা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার কারণে যেসব কর্মী অবৈধ হয়ে পড়েছে তাদের বৈধকরণের বিষয়ে সরকারের কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

(10) বার এই নিউজটি পড়া হয়েছে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।