,

সংবাদ শিরোনাম :
«» খাসোগি নিয়ে সৌদির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে জার্মানি «» মহানবী (স.) কে কটূক্তি না করতে ইউরোপীয় আদালতে রুল জারি «» চাইলে ফের আলোচনা হতে পারে : ওবায়দুল কাদের «» ড. কামাল হোসেন রাজাকার: বিচারপতি মানিক «» টেকনাফে বন্ধুক যুদ্ধে ২ সাদ্দাম নিহত : অস্ত্র, বুলেট ও ইয়াবা উদ্ধার «» দুর্নীতির আরেক মামলায় খালেদা জিয়ার ৭ বছরের কারাদণ্ড «» ভারতে ঢুকে ৩ সেনাকে হত্যা পাকবাহিনীর «» সংসদে বিল উত্থাপন: ইয়াবা-হেরোইন সেবন ও বহনের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড «» ৯ মাসে প্রবাসী আয় ১২ হাজার মিলিয়ন ডলার: সংসদে প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী «» এসআই নিয়োগ পরীক্ষার চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ «» ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন গ্রেফতার «» টেকনাফ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নব নির্মিত ভবণ-উদ্ধোধন করলেন আব্দুর রহমান বদি এমপি «» আরও কত উইকেট পড়বে সময় বলে দেবে: ওবায়দুল কাদে «» আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন চাই: সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এরশাদের ১৮ দফা ইশতেহার «» শহরের বিসিক এলাকায় র‌্যাবের অভিযান: ৫ কোটি টাকার ইয়াবাসহ আটক ৩ «» টেকনাফ সদরের চেয়ারম্যান শাহজাহান মিয়ার গাড়িতে ইয়াবা! চালক সহ আটক-২ «» সৌদি-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও উন্নত হবে: সৌদি বাদশাহ «» নিখোঁজের ৪ দিন পর নাফনদী থেকে হোয়াইক্যং স্কুলের দপ্তরি রশীদের গলাকাটা লাশ উদ্ধার «» টেকনাফের জালিয়ার দ্বীপ সংলগ্ন নাফ নদী হতে অজ্ঞাত দুটি লাশ উদ্ধার «» ইসরাইলকে থামালে বিশ্বে সন্ত্রাস বন্ধ হবে: মাহাথির «» সাবরাং ২নং ওয়ার্ড উপ- নির্বাচনে ছিদ্দিক আহদ নির্বাচিত «» টেকনাফে ঘুমন্ত অবস্থায় বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খুন! «» টেকনাফে র‌্যাবের অভিযান: চোরাই সিগারেটসহ রোহিঙ্গা নাগরিক আটক «» মুসলিম উম্মার প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান «» ইয়াবাসহ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়রের পুত্র-পত্রবধূ গ্রেফতার «» কাকরাইলে আবারও তাবলিগের দুই গ্রুপ মুখোমুখি «» পাকিস্তানকে হারানোর পর বাংলাদেশকে অভিনন্দন আফ্রিদির «» কাশ্মিরে বন্দুকযুদ্ধে ভারতীয় সেনাসহ নিহত ৩ «» ভারতীয় বিমান বাহিনীর উপপ্রধান গুলিবিদ্ধ «» পরকীয়া অপরাধ নয় : ভারতের সুপ্রিম কোর্টের রায়

কাকরাইলে আবারও তাবলিগের দুই গ্রুপ মুখোমুখি

কাকরাইলে আবারও তাবলিগের দুই গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সাদপন্থীরা কাকরাইল মসজিদের ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করলে তাদের বাধা দেয় সাদ বিরোধীরা। এ নিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়েছে। পুরো এলাকায় এখন উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে রাত পৌনে ১০টার দিকে রমনা থানার এসআই তাসপ যুগান্তরকে বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে একটু ঝামেলা হয়েছিল। তবে এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ১৮ সেপ্টেম্বর ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তাবলিগ জামাতে চলমান দ্বন্দ নিরসনের লক্ষ্যে নির্দেশনা দিয়ে একটি পরিপত্রও জারি করা হয়।এতে বাংলাদেশে দাওয়াত তাবলিগের কার্যক্রম সুষ্ঠু, সুন্দর ও সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে পাঁচটি নির্দেশনা দেওয়া হয়। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব দেলোয়ারা বেগম স্বাক্ষরিত পরিপত্রে তাবলিগ জামাতের চলমান সংকট নিরসনে তাবলিগের উভয় পক্ষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান, অপ্রচাররোধ, একে অপরের প্রতি সহনশীল মনোভাব পোষণসহ বেশকিছু বিষয় উল্লেখ করা হয়। পরিপত্রটি ইতিমধ্যে সব জেলা প্রশাসক ও তাবলীগের মারকাজগুলোতে ডাকযোগে পাঠানো হয়েছে। তাবলিগ জামাত একটি অরাজনৈতিক সংগঠন উল্লেখ করে পরিপত্রে বলা হয়, সমগ্র বিশ্বে তাবলিগের কার্যক্রম একটি অরাজনৈতিক অহিংস, শান্তিপূর্ণ ও সম্পূর্ণভাবে ধর্মীয় কার্যক্রম হিসেবে পরিচিত। মুসলিম জনসাধারণ তাদের আত্মশুদ্ধি ও ইসলামের দাওয়াতে প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে এ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে আসছেন। এ কার্যক্রমে বাংলাদেশ একটি অন্যতম অগ্রসরমান দেশ বিধায় বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ মুসলিম জামাত ‘বিশ্ব ইজতেমা’ প্রতি বছর গাজীপুর জেলার টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। তাবলিগ জামাতের চলমান সংকটের কথা উল্লেখ করে বলা হয়, সম্প্রতি এ সংগঠনের মধ্যে দৃশ্যমান বিভক্তি পরিলক্ষিত হচ্ছে। ফলে শান্তিকামী সংগঠনটির দুটি গ্রুপের মধ্যে দেশের প্রায় সকল এলাকায় প্রায়শই বিন্যাস লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যা ধর্মীয় রীতিনীতি তথা সার্বিক শান্তি-শৃঙ্খলার অন্তরায়। তাই দেশের জনগণের জানমালের নিরাপত্তা, ধর্মীয় সৌহার্দ ও সম্প্রীতি বজায় রাখা তথা সার্বিক শান্তি-শৃঙ্খলা নিশ্চিত করার জন্য কয়েকটি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে বলে পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে। তাবলিগের সংকট নিরসনে সরকারের পাঁচ নির্দেশনা–

১. বর্তমানে তাবলিগে বিদ্যমান দুটি পক্ষ সংশ্লিষ্ট স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা পরামর্শক্রমে কাকরাইল মসজিদ ও টঙ্গী ইজতেমা ময়দানসহ দেশের সকল জেলা ও উপজেলা মারকাজে সপ্তাহের ভিন্ন ভিন্ন দিনে, তারিখে তাঁদের কার্যক্রম (সাপ্তাহিক বানি ও রাত্রি যাপন, পরামর্শ ও তালিম, মাসিক জোড় ইত্যাদি) পরিচালনা করবে। তবে কোন পক্ষ চাইলে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে পরামর্শক্রমে মারকাজ ব্যতিত অন্য কোন মসজিদে বা জায়গাতেও তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে।

২. তাবলিগের আদর্শ ও চিরাচরিত রীতিনীতি অনুযায়ী কোন পক্ষ অপর পক্ষের বিরুদ্ধে কোনরূপ লিখিত বা মৌখিক অপপ্রচার চালাবে না। ৩. দেশের সকল মসজিদে পূর্বের ন্যায় শান্তিপূর্ণভাবে দাওয়াতি কার্যক্রম পরিচালিত হবে। সে লক্ষ্যে যে কোন মসজিদে উভয় পক্ষের জামাতই যেতে পারবে। এতে কোন পক্ষই কাউকে বাধা দিবে না।

৩. দেশের সকল মসজিদে পূর্বের ন্যায় শান্তিপূর্ণভাবে দাওয়াতি কার্যক্রম পরিচালিত হবে। সে লক্ষ্যে যে কোন মসজিদে উভয় পক্ষের জামাতই যেতে পারবে। এতে কোন পক্ষই কাউকে বাধা দিবে না। তবে একই সময়ে দুই পক্ষের দেশি ও বিদেশি জামাত একই মসজিদে অবস্থান করা যুক্তিসংগত হবে না। এক্ষেত্রে যে পক্ষের জামাত আগে আসবে সেই পক্ষের জামাত অবস্থান করবে। অন্য পক্ষের জামাত পার্শ্ববর্তী অন্য কোন সুবিধাজনক মসজিদে চলে যাবে।

৪. উভয় পক্ষ তাঁদের ইজতেমা বা জোড়ে তাবলিগের দেশি-বিদেশি মুরুব্বিদের আমন্ত্রণ জানাতে পারবে। এতে এক পক্ষ অন্য পক্ষের কার্যক্রমে কোনরূপ প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে না।

৫. কোন এলাকায় দুপক্ষের মধ্যে কোন বিরোধ দেখা দিলে স্থানীয় প্রশাসন উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

(10) বার এই নিউজটি পড়া হয়েছে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।