Teknaf News24:: টেকনাফ নিউজ২৪ এ আপনাকে স্বাগতম
সংবাদ শিরোনাম :
«» ৫০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগে এগিয়ে চলছে নাফ ট্যুরিজম পার্কের কার্যক্রম «» ইহুদিবাদী ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল তেলআবিব «» টেকনাফ র‌্যাবের হাতে ২লাখ ইয়াবাসহ মিয়ানমার নাগরিক আটক «» রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফেরত নিতে মিয়ানমারের প্রতি বান কি-মুনের আহ্বান «» মহেশখালীতে ১২ জলদস্যু বাহিনীর ৯৬ সদস্য অস্ত্র ও গুলি জমা দিয়ে আত্মসমর্পণ «» কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আমদানির সিদ্ধান্ত «» দাম বাড়ায় রাতে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা «» লাতুরী খোলা মসজিদ নিয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ «» সশস্ত্র রোহিঙ্গা ডাকাত দলের খোঁজে র‍্যাবের হেলিকপ্টার অভিযান «» টেকনাফে কোটি টাকার ইয়াবাসহ উলুচামরীর মিজান আটক «» ঘুষের টাকাসহ ইনকাম ট্যাক্স ইন্সপেক্টর গ্রেফতার «» পিঁয়াজ আমদানিকারকদের পকেটে ১৫৯ কোটি টাকা «» ৪২ টাকায় কেনা পিয়াজ ১১০ টাকায় বিক্রি! «» ভারত চাপে কি না বলতে পারব না, তবে আমরা আত্মবিশ্বাসী «» আন্তর্জঅতিক আইন লঙ্ঘন করে বাংলাদেশ সীমান্তে ইসরায়েলি ড্রোন দিয়ে নজরদারি করছে ভারত «» ৩৬ বছর পর মাকে ফিরে পেল আমিরাতের তরুণী মরিয়ম! «» সিরিয়ায় তুরস্ক-রাশিয়ার যৌথ টহল «» ভারতের সমুদ্রসীমায় ঢুকছে চীনা রণতরী : মার্কিন নৌবাহিনী «» নিরাপদ অঞ্চলে এখনো সন্ত্রাসীরা অবস্থান করছে: এরদোগান «» মালয়েশিয়া থেকে শুরু হলো প্রবাসীদের ভোটার নিবন্ধন কার্যক্রম «» বৃহস্পতিবার খোকার মরদেহ দেশে আসবে «» অবৈধ সম্পদ অর্জনকারী ৬০০ জনের নতুন তালিকা «» তথ্য চেয়ে ফের বিআরটিএকে দুদকের চিঠি «» ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজি সামীম আফজালের ব্যাংক হিসাব তলব «» শুদ্ধি অভিযান আইওয়াশ কিনা সময়ই বলবে: প্রধানমন্ত্রী «» সাকিবের নিষেধাজ্ঞা দুঃখজনক: মির্জা ফখরুল «» আলেমদের মর্যাদা সবার ওপরে «» ১৩ মাসে কক্সবাজারে ১৮৪ মাদককারবারি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত «» দ্রুতগতিতে যুদ্ধজাহাজ নির্মাণ করছে চীন, ভারত মহাসাগরে প্রবেশের আশঙ্কা «» রোহিঙ্গাদের জন্য ভাসানচর প্রস্তুত দ্রুত উদ্যোগ নিতে বলেছে সংসদীয় কমিটি

শ্রীলংকার এক রহস্যময় চূড়া কাহিনী!

বিশ্বে অনেক রহস্যময় চূড়া রয়েছে। এগুলো নিয়ে গবেষকরা নানাভাবে গবেষণা চালিয়ে থাকেন। এবার শ্রীলংকার এক রহস্যময় চূড়া কাহিনী আপনাদের সামনে তুলে ধরা হবে। শ্রীলংকার দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্তের শ্রীপাডা নামক প্রদেশে একটি রহস্যময় আদম চূড়ার সন্ধান পাওয়া গেছে। হাজার হাজার বছর ধরে এক রহস্যের স্বাক্ষর বহন করে চলেছে এই অ্যাডাম পিক বা যাকে বলা হয় ‘আদম চূড়া’। খ্রিস্টান, হিন্দু, বৌদ্ধ এমনকি মুসলিম ধর্মের অনুসারীদের কাছেও এটি পবিত্র এক চূড়া। শ্রীলংকার দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্তের শ্রীপাডা নামক প্রদেশে একটি রহস্যময় আদম চূড়ার সন্ধান পাওয়া গেছে। হাজার হাজার বছর ধরে এক রহস্যের স্বাক্ষর বহন করে চলেছে এই অ্যাডাম পিক বা যাকে বলা হয় ‘আদম চূড়া’। খ্রিস্টান, হিন্দু, বৌদ্ধ এমনকি মুসলিম ধর্মের অনুসারীদের কাছেও এটি পবিত্র এক চূড়া। শোনা যায় যে, হজরত আদম (আ:) বেহেশত হতে পতিত হন শ্রীলংকায়। আর আদি মাতা হজরত হওয়া (আ:) পতিত হন জেরুজালেমে। শ্রীলংকা হতে জেরুজালেমের দূরত্ব হাজার কিলোমিটার। মহান প্রভুর নিকট অনেক অনুতাপের পর উভয়ে মিলিত হন মধ্যপ্রাচ্যে। আর তাই বহুকাল ধরে শ্রীলংকার এই চূড়াকে কেন্দ্র করে রহস্য হয়ে আছে। হযরত আদম (আ:) এই চূড়ায় পতিত হয়েছিলেন বলে এই চূড়াটিকে বলা হয় আদম চূড়া বা ‘অ্যাডাম পিক’। জানা যায়, এই চূড়ার উচ্চতা হলো ৭৩৬২ ফুট বা ২২৪৩ মিটার। চূড়াটিতে হযরত আদম (আ:)-এর পায়ের যে চিহ্ন রয়েছে তার পরিমাপ হচ্ছে ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি, দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ হচ্ছে ২ ফুট ৬ ইঞ্চি। জানা যায়, এই চূড়ার উচ্চতা হলো ৭৩৬২ ফুট বা ২২৪৩ মিটার। চূড়াটিতে হযরত আদম (আ:)-এর পায়ের যে চিহ্ন রয়েছে তার পরিমাপ হচ্ছে ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি, দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ হচ্ছে ২ ফুট ৬ ইঞ্চি। বৌদ্ধ ধর্মমতে, খ্রিস্টপূর্ব ৩০০ অব্দে এই পদচিহ্নটি আবিষ্কৃত হয়। আবিষ্কৃত হওয়ার পরে পদচিহ্নের চতুর্দিকে ঘেরাও করে রাখা হয়েছে। যুগ যুগ ধরে শত শত পর্যটক পরিভ্রমণ করেছেন চূড়াটিতে। বিশ্বের যেসব নামকরা পর্যটক এই চূড়াটিতে পরিভ্রমণ করেছেন তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন ইবনে বতুতা (১৩০৪-১৩৬৪) এবং মার্কো পলো (১২৫৪-১৩২৪)। জানা যায়, এই চূড়াটিতে যারা পরিভ্রমণ করেছেন তারা এর চতুর্দিকে পরিদর্শন করা ছাড়াও স্পর্শ করেছেন হযরত আদম (আ:)-এর পদচিহ্ন। বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারীরাই নাকি বেশি এই চূড়ায় যাতায়াত করেন। এ ধর্মের অনুসারীরা মনে করেন, এই চূড়াটি তাদের অস্তিত্বের আদি প্রতীক। কিন্তু এই চূড়াটিতে যাওয়া কোনো সহজ কাজ নয়। প্রথমে নৌকা কিংবা পানিতে চলে এমন ধরনের যানে আরোহণ করতে হবে। তারপর পায়ে হেঁটে উঁচু পাহাড়ে ওঠতে হয়। তারপর সেখান থেকে বহু কষ্টে চূড়ায় উঠতে হয়। আর এরমধ্যে ঘটতে পারে নানা বিপত্তি। সাপ, বিষাক্ত পোকামাকড়ের কামড়ে মৃত্যুও ঘটতে পারে যে কারও। হাজার হাজার বছর ধরে চলে আসা যে রহস্য আজও মানুষ জানতে পারেনি সেটি হলো- চূড়ার যে স্থানে হযরত আদম (আ:)-এর পায়ের চিহ্ন সেই স্থানে জানুয়ারি হতে এপ্রিল পর্যন্ত সূর্যের আলো এবং মে হতে নভেম্বর পর্যন্ত মেঘের ঘনঘটা বা কোনো বৃষ্টি পড়ে না। বহু রহস্য রয়েছে এই চূড়াটিকে কেন্দ্র করে। চমৎকার এই চূড়াটি বছরের পর বছর অবিকল রয়ে গেছে। ঝড়-বৃষ্টি বা কোনো কিছুতেই সৌন্দর্য এতটুকুও ম্লান হয়নি। আর তাই এই ‘আদম চূড়া’টি বিশ্বের মানুষ পবিত্র বলেই জানেন। যে কারণে মানুষের কাছে এটি একটি রহস্য হয়ে রয়েছে। প্রকৃত রহস্য ভেদ করা যায়নি আজ পর্যন্ত।

(10) বার এই নিউজটি পড়া হয়েছে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।